Monday, March 4, 2024
HomeBreakingদেড় মাসে আক্রান্ত ৪০০ জন, ডেঙ্গি-উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে ডায়মন্ড হারবারে

দেড় মাসে আক্রান্ত ৪০০ জন, ডেঙ্গি-উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে ডায়মন্ড হারবারে

ডেঙ্গি রুখতে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। গ্রামীণ এলাকায় স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন। জ্বর হলেই রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হচ্ছে।
ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলায়। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, গত দেড় মাসে এই স্বাস্থ্য জেলায়
আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৪০০ জন। সব মিলিয়ে চলতি বছরে আক্রান্তের সংখ্যা ৬০০।
ডায়মন্ড হারবার ও কাকদ্বীপ— এই দুই মহকুমা নিয়ে ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলা। জনসংখ্যা ৩৫ লক্ষের বেশি। দুই মহকুমার মধ্যে ডায়মন্ড হারবারেই আক্রান্তের সংখ্যা বেশি বলে জানান স্বাস্থ্য জেলার আধিকারিকেরা। তবে ডেঙ্গি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা খুব বেশি নয়। স্বাস্থ্য জেলা সূত্রের খবর, ডায়মন্ড হারবার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে জনা দশেক রোগী ভর্তি আছেন। বাকিদের বাড়িতেই চিকিৎসা চলছে। গত কয়েক মাসে ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়ে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। মাস কয়েক আগে ডায়মন্ড হারবারের মগরাহাট ২ ব্লকের এক ব্যক্তি ডেঙ্গি আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তিনি অবশ্য কলকাতার যাদবপুরে থাকতেন। মন্দিরবাজারের কৃষ্ণদেবপুরের বাসিন্দা এক ব্যক্তিরও মৃত্য হয় কয়েক মাস আগে। তবে ওই ব্যক্তি ডেঙ্গি পাশাপাশি অন্য রোগে আক্রান্ত ছিলেন বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানানো হয়েছিল।
ডেঙ্গি রুখতে পদক্ষেপ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। গ্রামীণ এলাকায় স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন। জ্বর হলেই রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হচ্ছে। গত বছর এই সময়ে ন’হাজার জনের ডেঙ্গি পরীক্ষা হয়েছিল। এ বার এখনও পর্যন্ত ২০ হাজারের বেশি পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে বলে স্বাস্থ্য জেলা সূত্রের খবর। নমুনা সংগ্রহের পাশাপাশি মানুষকে সচেতন করতে লাগাতার প্রচার চলছে। বাড়িতে জল, আবর্জনা জমিয়ে না রাখার ব্যাপারে সতর্ক করা হচ্ছে। মশারি টাঙিয়ে ঘুমোনোর পাশাপাশি জ্বর হলেই স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগাযোগ করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ডেঙ্গি নিয়ে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর একাধিক বার বৈঠক করেছে।
ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জয়ন্ত সকুল বলেন, “এখনও পর্যন্ত এই স্বাস্থ্য জেলায় প্রায় ৬০০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। ডেঙ্গি মোকাবিলার জন্য গ্রামীণ স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও উপ স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ করতে বলা হয়েছে। জ্বর হলেই রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। ডেঙ্গি আক্রান্ত এলাকায় নিয়মিত পরিদর্শন চলছে। গত দেড় মাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। ডেঙ্গি মোকাবিলার সব রকম প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।”Mom

RELATED ARTICLES
Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it

Most Popular