Saturday, June 15, 2024
HomeBreakingDilip Ghosh : 'গত ৩-৪ বছরে আমরা আর এগোতে পারিনি', হারের পর...

Dilip Ghosh : ‘গত ৩-৪ বছরে আমরা আর এগোতে পারিনি’, হারের পর মুখ খুললেন BJP প্রার্থী দিলীপ ঘোষ

সদ্য প্রকাশ পেয়েছে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল। যে বাংলাকে পাখির চোখ করেছিল বিজেপি, সেই বাংলাতেই আশানুরূপ ফল পায়নি বিজেপি। জনতা ফের ভরসা রেখেছে তৃণমূলেই। কোথায় ফাঁক থেকে গেল সেই বিষয় নিয়েই এবার মুখ খুললেন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে একপ্রকার ঘাঁটিই গেড়েছিলেন দিলীপ। নিরন্তর চলেছিল জনসংযোগ। কিন্তু ভোটের অঙ্কে তার প্রভাব পড়তে দেখা গেল না। তৃণমূলের তারকা প্রার্থী কীর্তি আজাদের কাছে প্রায় দেড় লক্ষ ভোটে হারলেন তিনি।

ফলপ্রকাশের পরের দিন, অর্থাৎ বুধবার সকালে নিউটাউন ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে আসেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। সেখানেই সংবাদ সংস্থার মুখোমুখি হয়ে যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর দিলেন তিনি। তাঁর জমানায় বাংলায় বিজেপির ঝুলিতে এসেছিল ১৮টি আসন, সেখানে শুভেন্দু-সুকান্তর জমানায় সেই টার্গেট পূরণ তো দূরস্ত বরঞ্চ সেই অঙ্ক কমে হয়ে যায় ১২। দিলীপ ঘোষের মতে, “পার্টি চলতে থাকে। লড়াই চলতে থাকে। নেতা পাল্টে যায়। এটা ঠিক আমরা ২০২১ পর্যন্ত এগিয়েছি। বহু কর্মী ‘শহিদ’ হয়েছেন, ‘আক্রান্ত’ হয়েছেন। আমরা ১৮ সাংসদ এবং ৭৭ বিধায়ক পেয়েছিলাম। ওখানেই আমাদের গ্রোথ আটকে গেছে। ভোটের শতাংশ একই আছে। আর গ্রোথ হয়নি। আমরা গত ৩ বছরে এগোতে পারিনি। ভাবতে হবে। এইখানে আমরা যে গতিতে এগোচ্ছিলাম সেটা সারা দেশে আলোচনার বিষয় ছিল। সবাই অনেক আশা করেছিলাম। কিন্তু সব কর্মীরা নামেনি। গতি রুদ্ধ হয়ে গেলে কর্মীরা হতাশ হয়ে যাবেন।”

আরও পড়ুন : Lok Sabha Election 2024 Result : বারাণসী কেন্দ্রে দেড় লক্ষের ব্যবধানে জয়ী নরেন্দ্র মোদী; কী অবস্থা বঙ্গে?

এর পাশাপাশি বাংলায় বিজেপির এমন পরিস্থিতি নিয়ে দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) স্পষ্ট বলেন, “আমি যেটুকু রাজনীতি বুঝি, দেশে বহুবার এরকম উত্থান পতন হয়েছে। রাজীব গান্ধীর মৃত্যুর পর বিজেপি ২ সিট পেয়েছিল। অটল বিহারী বাজপেয়ীর মতো মানুষকে খারাপভাবে হারতে হয়েছিল। বাজপেয়ী সরকার চলে যাওয়ার আগে মমতার মাত্র ৮ সিট ছিল। উনি বাড়িয়ে ক্ষমতায় এসেছেন। আমার কর্মী যারা তাদের এই উত্থান পতনকে সঙ্গী করেই এগোতে হবে। ব্যক্তিগত রেষারেষি এবং ভুল পলিসির জন্য এইভাবে হাজার হাজার কর্মীর আত্মত্যাগ বিফলে চলে গেলে পরবর্তীকালে তাদের দলের কাজে লাগানো মুশকিল হয়ে যাবে। মানুষের পার্টির ওপর আস্থা চলে যাবে।”

প্রশ্নোত্তর পর্বে সন্দেশখালি প্রসঙ্গে এলে বিজেপি নেতা (Dilip Ghosh) বলেন, “আন্দোলনটা রাজনৈতিক ছিল না, সাধারণ মানুষের আন্দোলন ছিল। পরে বিজেপি জনগণকে তাদের ন্যায় দেওয়ার চেষ্টা করেছে। কালও অত্যাচার হয়েছে। এরপর ওই মহিলারা ওখানে আর থাকতে পারবেন কিনা জানিনা। এই আন্দোলন সারা দেশে নজির গড়েছিল। ওটা আমাদের পুরোনো গড়। ঘোরতর তৃণমূল জমানাতেও আমরা ওখানে ভালো ভোট পেতাম। কিন্তু আরও ভালো রেজাল্ট হবে ভেবেছিলাম, কিন্তু হয়নি।”

SHARE
RELATED ARTICLES
Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it

Most Popular